সেদিন আমাদের সংস্থার একটা মিটিং ছিলো। আন অরগানাইজড ওয়ার্কার দের নিয়ে যারা কাজ করে সেই সব এন জি ও এবং কিছু প্রতিনিধি এসেছিলেন। ভাগ চাষী, কাজের মহিলা যারা যে সংস্থার সাথে যুক্ত তারাও এসেছিলেন।সারা দিনের প্রোগ্রাম, সকালে পুরি সব্জি, দুপুরে ডাল, ভাত, আলু ভাজার ব্যাবস্থাও ছিলো।

এই সব অনুষ্ঠানে যেমন হয়, বক্তা বলতে শুরু করে কিন্তু থামতে জানে না। আমায় শুনতেই হচ্ছিলো, কারন ডকুমেন্টেশনের কাজ আমার। তবু মাঝে মধ্যে সেই সব প্রান্তিক মানুষ গুলোর  সাথে কথাও বলছিলাম।এক একজনের এক এক গল্প, কিন্তু কমন ফ্যাক্টর ছিলো, ‘ভুখ’। আমরা যাদের কাল কি খাবোর ভাবনা নেই তারা কল্পনাও করতে পারবে না কি কঠীন জীবন যাত্রা এনাদের।মহিলারা হচ্ছে শোষিতের মধ্যে শোষিত।(VULNERABLE OF THE VULNERABLE).

2

এরা নর্দমা, এবং অন্য বর্জ্য পরিস্কার করে। সকালে উঠে খালি পেটেই চোলাই খেয়ে কাজে লাগে। কারন সুস্থ্য অবস্থায় ওই নোংরা ঘাঁটা যায় না।এই খালি পেতে চোলাই ওনাদের জীবনকাল খুব দ্রুত শেষ করে দেয়।

এই সব কথা শুনতে শুনতে দুপুরের খাওয়ার ডাক পরলো। আমি সাধারনত এই ধরনের মিটিং এ কোন একটা সফট ড্রিংক ই নেই। আমি আমার গ্লাসটা নিয়ে দোতলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে ওনাদের খাওয়া দাওয়া দেখছিলাম; তোমরা বিশ্বাস করবে না অসীম মমতায় ভাত মেখে পরম আগ্রহে খাওয়ার সেই দৃশ্য আমায় কাঁদিয়ে দিয়েছিলো! আমরা তো টিভি দেখতে দেখতে বা বই পড়তে পড়তে খাই। ভাতের থালার দিকে তাকালেও দেখিনা।দিনে একবার নিশ্চিন্তে পেটভরে খাওয়ার সুখ এরা খুব কম পায়। তাই শালপাতার থালায় ভাতের হাতা উপুর হতেই ওনাদের চক্ষে যে খুশির আল,পরম মমতায় ভাতের ওপর হাত বোলানো আর ডাল দিয়ে যতনে মেখে মুখ ভর্তি ভাত নিয়ে হাসি হাসি মুখে ওনাদের একে অপরের মুখের দিকে তাকানোয় যে কি আনন্দ তা আমি লিখে বা ফোটো তুলেও বোঝাতে পারবো না।

3

আমরাও যদি খাবার কে এতো আগ্রহে, ভালোবাসায় গ্রহন করি তবেই হয়তো কোনদিন বুঝতে পারবো খাবারের আসল মূল্য, টাকায় কেনা দাম নয়। খুশির ভাত খাওয়া।

Advertisements